২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, রাত ১০:৩১
ব্রেকিংনিউজ :

ফতুল্লায় কিশোর সন্ত্রাসীদের আঘাতে আসলাম গুরুতর জখম

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট : ফেব্রুয়ারি, ৮, ২০২৩, ৯:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ১০০ ০৯ বার দেখা হয়েছে
ফতুল্লায় কিশোর সন্ত্রাসীদের আঘাতে আসলাম গুরুতর জখম

নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লার দেলপাড়া চেয়ারম্যান বাড়ী এলাকায় সংঘবদ্ধ মাদকসেবি কিশোর সন্ত্রাসীদের আঘাতে আক্তার মিয়ার ছেলে আসলাম (৩৬) সহ কয়েকজন গুরুতর আহত করাসহ দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায় ।

ঘটনার সূএে যানা যায় যে গত ৩ রা  ফেব্রুয়ারী এশার নামাজের পর ৯.৩০ মিনিটে  আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেম (৩৪), পিতা-আঃ রশিদ মিয়া, সাং-দেলপাড়া চেয়ারম্যান বাড়ী রোড, থানা- ফতুল্লা, জেলা-নারায়ণগঞ্জ। সে দেলপাড়াস্থ সৈয়দ আছিয়া খাতুন নূরাণী জামে মসজিদের পেশ ইমাম। পাশাপাশি  চেয়ারম্যান বাড়ীর রোড খোনাই বাড়ী মহরা দেলপাড়ায় মোবাইল বিকাশ, ফেক্সিলোড ও সিসি ক্যামেরার দোকান নিয়া ব্যবসা  করেন। এশার  নামাজ শেষে  দোকানে বেচা কেনা করা অবস্থায় দেখতে পায় দেকানের সামনে  অজ্ঞানামা ৭/৮ জন রাম দা, চাপাতি, লোহার রড, কাঠের ডাসা ইত্যাদি দেশীয় অস্র-সস্রে সজ্জিত হইয়া সন্ত্রাসী কায়দায়   হাসিব নামের একজনকে  বেধম  মারপিট করতে।   হাসিব তাদের অত্যাচারের  হাত থেকে প্রান রক্ষার্থে আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেম এর দোকানের ভিতরে ডুকিয়া আশ্রয় নিতে গিলে সন্ত্রাসী কিশোররা দোকানে ডুকেই    হাসিরকে মারপিট  করিতে গেলে আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেম মারধোরে বাধা নিষেধ করে রক্ষা করতে গেলে সংঘবদ্ধ  অপরাধীরা  ক্ষিপ্ত হইযা  আরো ভয়ংকর রুপ ধারন করে  হাসিবকে সহ আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেমকে   মারপিট করিতে থাকে।   আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেমে মারধোরের কথা পেয়ে আসলাম তার  ছোট ভাই হৃদয় (৩২)কে সঙ্গে নিয়ে চাচাতো ভাই   আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেমকে বাচাতে এগিয়ে গিয়ে  বাধা নিষেধ করিলে কিশোরদল  আসলাম  ও তার  ছোট ভাইয়ের উপরও ক্ষিপ্ত হয়ে এলোপাতাড়ি মারধোর শুরু করে। এক পর্যায়ে তাদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র  চাপাতি দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে আসলামের  কপালের ডান পাশে কোপ মারিয়া গুরুতর রক্তাক্ত  জখম করে এবং লোহার রড দিয়ে এলোপাথারী মারপিট করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলা জখম করে। আসলামকে ছোট ভাই   হৃদয়  রক্ষা করার জন্য আগাইয়া গেলে তাকেও  কিশোর সন্ত্রাসীরা  লোহার রড দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে হৃদয়ের  মাথায় আঘাত করিতে গেলে হৃদয় মাথা সড়াইয়া নিলে   মাথায় না লেগে বাম হাতে আঘাতপ্রাপ্ত হইয়া  হাড় ভেঙ্গে  তরুতর জখম হয় ।

 

সন্ত্রাসী কিশোরদল  দোকানে ডুকে সবাইকে  এলোপাথী মারধোর  করে  শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলাফুলাসহ রক্তাক্ত  জখম করে। সেই সাথে  মারধোরের একপর্যায়ে আসলামের   গলায় থাকা দেড় ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন যার আনুমানিক মূল্য ১,২০,০০০টাকা, ও  আরিফুল ইসলাম মোয়াজ্জেমের  দোকানের ক্যাশ বাক্স হইতে  নগদ ২,৬৪,০০০টাকা,  ০৩টি মোবাইল ফোন, মূলা ৩০,০০০ টাকা ও  ০৯টি সিসি ক্যামেরা মূল্য  ৩৫,০০০ টাকা লুটপাট করিয়া  নিয়ে যায়। এছাড়াও   দোকানে আসবাবপত্র ভাংচুর করিয়া অনুমান ২০/৩০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে বলে ভুক্তভোগীদের দাবী।

 

আঘাতপ্রাপ্ত আসলাম প্রাণে বাচতে কিশোরদের অত্যাচারের হাত থেকে  রক্ষা পেতে আত্ন চিৎকার দিলে  আশেপাশে থাকা  লোকজন আগাইয়া আসিতে দেখিলে  কিশোর সন্ত্রাসীরা যাবার সময়   ভয়ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করিয়া পালিয়ে যায়। আঘাতপ্রাপ্ত সকলেই স্থানীয় লোকজনের সহায়তায়  ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল, খানপুর, নারায়ণগঞ্জ হইতে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নিজে  বাদী হয়ে ন্যায় বিচারের স্বার্থে ঘটনার বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানায়  ১। মানিক (২৮), ২। রাকিব (২২), উভয় পিতা-রাজ্জাক, সাং-দেলপাড়া চেয়ারম্যান বাড়ীর রোড খোদাই বাড়ী মহত্যা, ৩। জিসান (২৭), পিতা-নাসির মিয়া, সাং-দেলপাড়া বাজার, ৪। মিজান (২৬), পিতা- মৃত: নজরুল, ৫। হাসান (২৫), পিতা-কাঞ্চন মিয়া, ৬। মিরাজ (২২), পিতা-আবু মিয়া, সর্ব সাং-দেলপাড়া চেয়ারম্যান বাড়ীর রোড খোনাই বাড়ী মহরা, ৭। তানজিল (২৩), পিতা- অজ্ঞাত, সাং-ভূইগড় রাইস মিল ভূঁইয়া নগর, জেলা-নারায়ণগঞ্জ সহ অজ্ঞাতানা ৭/৮ জনকে আসামী করে   অভিযোগ দায়ের করেন।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করে সবাই কে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের আরো খবর
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত  © ২০২১ সবার কন্ঠ
Design & Developed BY:Host cell BD
ThemesCell